আল্যা সর্বব্যাপী – তিনি বরাহেও আছেন, বিষ্ঠাতেও আছেন # আল্যা সর্বব্যাপী – তিনি বোরখাতেও আছেন, বিকিনিতেও আছেন # আল্যা সর্বব্যাপী – তিনি জলাশয়েও আছেন, মলাশয়েও আছেন # আল্যা সর্বব্যাপী – তিনি উটমূত্রেও আছেন, কামসূত্রেও আছেন # আল্যা সর্বব্যাপী – তিনি আরশেও আছেন, ঢেঁড়শেও আছেন # আল্যা সর্বব্যাপী – তিনি হাশরেও আছেন, বাসরেও আছেন

বৃহস্পতিবার, ২৯ জুন, ২০১৭

ইমানুলের ধর্মকথা- ১১

লিখেছেন ইমানুল হক

১৩.
গডানাডা না কলিই না। অইচে কি, গতকাল ইশার অক্তে গেসি মজ্জিদে নমাজ ফইত্তে। আমার বয়সি আরো কয়েকডা বুইড়া আগ তিকাই হাজির। যাওক, বইসি যায়া এক্কেরে কুনার এক জানলার লগে, জুতাডা ফাশে রাকি, পাছে আবার জুতা না চুরি অয়। ত সুন্নত ডা ফড়ি বইসি তসবি লই আল্লাকুদার জিকির কইত্তে। এক মনে জিকির কইত্তেসি, অডাৎ চুক ফড়ি গেল জানলার দিক। দেহি এক টিকটিকি জানলার উফ্রে দি গুইত্তিসে। ফাশ তিকে জুতা ডা না নি, লাগাইসি সজুরে টিকটিকির ফু টিকটিকির দিক। লাইগলো গিয়া বালডার মুকের উফ্রে গি, আমার সামনে আসি ফইল্য লেঞ্জা ডা। আর টিকটিকি মুক লাগি রইল জানলার উফ্রে। এইবার লাগাইলাম আরেকডা বারি কইস্যা, আর জোরে জোরে বইলতে তাইকলাম "মরবি না সয়তানের বাচ্চা সয়তান? মইত্তে তক অবেই।" আল্লার নাম নি লাগাইলাম তিতিয়বার। হারামিরফুতে মইচ্চে কিন্তু সেই মুত্তেই হুনি কি যানি মচমচ শব্দে ভাঙ্গার আউয়াজ। ও কুদা এ ত দেকি জানলার কাচডাই ভাঙ্গি ফেইল্যাম! "আমি এ কি কইল্যাম আল্লার গড়ের জানলা ভাঙ্গি ফেইল্যাম?" তক্কুনি পিচন তেকে কে যানি আমার কলার দরি লাগাইলো কোক্সার মইদ্দে এক গুসি। আমি ত বেতায় চিক্কার দি উটলাম, "আল্লারে আমারে মারি ফেইল্য রে। আল্লা আমাক বাচাও।" 

এইর মইদ্যেই বিড় ঠেলি বড় হুজুর চলি আইল, বড় হুজুর সামনে আয়েই জিগাইল,"কি অয়েচে ? কি অয়েচে? তুমরা মারামারি বাদাইলা কেনু? আমি তাক বইল্যাম, হুজুর আমি ত কল্ফনাও কইত্তে ফাড়ি নাই যে এমুন গডনা গইটবে। আমি দেকলাম যে কাচের মইদ্দে একডা টিকটিকি গুইত্তেসে। বাইবলাম, এইডাই ত মুক্কম সুযোক আল্লার রচূলের সুন্নত ফালনের। (হযরত আবু হুরাইরা রাদিয়াল্লাহু আনহু বলেন, রাচূলুল্লাহ চল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া চল্লাম বলেচেন, যে ব্যাক্তি এক আগাতে টিকটিকি মাইরবে সে অনেক ছুয়াব পাবে আর যে ব্যক্তি দুই আগাতে মাইরবে সেও অনেক ছুয়াব পাবে তয় ফ্রতম বারের তুলনায় কম, আর যে ব্যক্তি তিন আগাতে মাইরবে সেও অনেক ছুয়াব পাবে তয় দ্বিতীয় বারের তুলনায় কম। (মুসলিমঃ৫৮০৭) আরেক  হাদিসে হযরত আয়েশা রাদিয়াল্লাহু আনহা এই টিকটিকির পু টিকটিকিক মারার কারণ বন্যনা কইত্তে গিয়ে কন, হুজুর চল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া চল্লাম বল্যেন, যকন ইব্রাহিম আলাইহিচসালাম কে অগ্নিকুণ্ডে নিক্কেপ করা অয়েচিল, তকন (আগুন বিদ্দির উদ্দেশ্যে) টিকটিকি ওকানে ফু দিচ্চিল (আহমাদঃ২৪৭৮)।­ অতএব যদি কুন ব্যক্তি নেকী হাচিল করার উদ্দেশে টিকটিকিক মারে তালি ফড়ে তার ছওয়াব অবে। সুত্রঃ মুসলিমঃ ৫৮০৭, আহমাদঃ২৪৭৮, ইমদাদুল মুফতিয়্যিনঃ ২০৬) ত আমিও চিন্তা কইল্যাম ইডা ত কুনু বাবেই মিস করা যায় না। মাইল্যাম আল্লার নাম নি জুতা দি বারি, সয়তান টিকটিকিডা মইল্য ঠিকি। কিন্তু কাচডাও গেল ভাঙ্গি। কি আর করাম, আল্লার নবির সুন্নত ফালনে যে মুমিনগের লাই কত বাদা তা আইজ আবার হারে হারে ট্যার ফাইলাম হুজুর। আমি হাউমাউ করি উটলাম, "আল্লা, আমি কি বুল কইচ্ছি তুমিই কও আল্লা?? হুজুর আমাক তামাই বইল্য, "ইমান তুমি কুন বুল করো নাই, তুমি সত্যই নবির খাটি এক্কান উম্মত। তুমি আল্লার খাটি এক্কান বান্দা। আল্লা তুমার মংগল কইরবে ইন্সাল্লা। তয় আল্ল্যার গরের একডা কাচ ভাইংছ তার বদলে জরিবানা বাবদ দুইকান কাচের ট্যাকা দিলেই চইলবে।" আমি তার দিকে না তাকাই হাউমাউ করে কাইদতেই তাইকলাম।

 

1 টি মন্তব্য:

  1. সুন্নত পালন করা যে ব্যায়সাপেক্ষ তা বোঝা যাচ্ছে। এ জন্যই হয়তো সুন্নত পালনে মুমিনদের এত অনিহা ।

    উত্তর দিনমুছুন